Sunday, July 21, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজনীতিনরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

বিশ্ব সমাচার, ক্যানিং ও সানওয়ার হোসেন, রায়দিঘি: শুক্রবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার তিনটি জনসভায় বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন ক্যানিংয়ের স্পোর্টস কমপ্লেক্স ময়দানে জনসভায় তিনি বলেন, মোদী বলছেন, ঈশ্বর নাকি তাঁকে তৈরি করেছেন।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

বলে দিচ্ছে, জগন্নাথ দেবও নাকি ওঁর ভক্ত। তাহলে আপনার মন্দির তৈরি করে দেব। তুলসী পাতা, ধূপ দিচ্ছি। খাও-দাও বসে থাকো। দেশটাকে বিক্রি করতে হবে না। আসলে উনি হেরে যাবেন বলে হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন। তাই আবোল-তাবোল বকছেন মোদী। জনসভায় মহিলাদের উদ্দেশে মমতা বলেন, মায়েরা যত দিন বেঁচে থাকবেন, লক্ষ্মীর ভান্ডার পাবেন। বন্ধ হতে দেব না।মুখ্যমন্ত্রী এদিন জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রের ক্যানিং ছাড়াও দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুর লোকসভা কেন্দ্রে সাগর ও রায়দিঘিতেও জনসভা করেন। ক্যানিংয়ের সভায় তিনি আরও বলেন, বিজেপির মতো বড় চোর, জুমলাবাজি পার্টি আর কোথাও নেই। বিজেপি না করলে কাদা।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

আর বিজেপি করলে সাদা? মোদীর গ্যারান্টি ফোর টোয়েন্টি। দেশটাকে, জাতিটাকে, সংবিধানটাকে বিক্রি করে দিয়েছে। যত শীঘ্রই বিজেপি সরকারকে সরানো যায়, ততই মঙ্গল। ৩৪ বছরের বাম সরকারকে যখন সরানো গিয়েছে, তখন জনগণের আশীর্বাদে বিজেপির বিদায় হবে।মেয়েরা মাটি কেটে কাজ করেছিলেন। তাঁদের ১০০ দিনের কাজের টাকা দেয়নি। আমরা দিয়েছি। যে পাকা বাড়ির ছবি দেখাচ্ছে, তা-ও মিথ্যা। বিজেপি একটা মিথ্যাবাদীর দল। ১১ লক্ষ পাকা বাড়ি আমরা তৈরি করে দেব। বিজেপি যেটা বলে, সেটা করে না, প্রলোভন দেখায়। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মিথ্যা প্রতিশ্রুতির কথা বলছে। মানুষ যখন কোথাও বিচার পায় না, তখন আদালতে যায়। কিন্তু এখন মানুষকেই নিজের বিচার করতে নিজেকে করতে হবে। আমরা আদালতকে অসম্মান করি না।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

কিন্তু কয়েকজনের রায়ের ভিত্তি নেই, কোনও কোনও বিচারপতি যখন বলেন, আরএসএস করতাম।মুখ্যমন্ত্রী সন্দেশখালি প্রসঙ্গে বলেন, সন্দেশখালির মায়ের অপমান করেছে জুমলাবাজি পার্টি। মায়েদের জাগ্রত হতে হবে। বিজেপি কে বিদায় করতে হবে। বিজেপিকে কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আর একটা পার্টি সিপিএম এবং কংগ্রেস। আমরা দিল্লিতে জোট ‘ইন্ডিয়া’তে আছি। ‘ইন্ডিয়া’ জোট ক্ষমতায় আসবেই। আমরা ইন্ডিয়া জোটকে নেতৃত্ব দেব। অন্যদিকে, বিজেপি সরকার ইচ্ছা করে প্ল্যান করেছে, যাতে মুসলমান ভাইয়েরা হজে চলে যায়। ভোট দিতে না পারে। বাকি ভোট যেন পড়ে। ইচ্ছা করে আপনাদের নাম ভোটার লিস্ট থেকে বাদ দেয়। ১৫ লক্ষ ওবিসি কার্ড বাতিল করে দিল।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

মগের মুলুক! আমি উচ্চ আদালতে যাব। আমি রায় মানি না। লজ্জা করে না?’জনসভার মঞ্চ থেকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে সাধারণ মানুষকে সতর্ক করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় আসতে পারে। যাঁরা সমুদ্রে মাছ ধরতে যান, তাঁদের বারণ করা হয়েছে সমুদ্রে যেতে। কিছু হলে প্রশাসন আছে। ক্যানিংয়ের মিটিং বিকালে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আবহাওয়া ভাল নেই, সেই কারণে দুপুরেই হয়েছে। সুন্দরবনকে প্রতি বছরই প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখে পড়তে হয়। আমরা মানুষকে সাহায্য করার চেষ্টা করি। সুন্দরবন নিয়ে আলাদা মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা হচ্ছে। ২০ কোটি ম্যানগ্রোভ বসানো হয়েছে সুন্দরবনের বিভিন্ন নদীবাঁধ এলাকাতে। ৩৪ বছরে বাম সরকার জেলার জন্য কিছুই করেনি। শুধু তাই নয়, পরিবর্তনের সরকার ক্ষমতায় আসার পর মেডিকেল কলেজ করা হয়েছে, আইটিআই করা হয়েছে, বিভিন্ন হাসপাতাল হয়েছে, মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় করা হয়েছে। তাছাড়াও উন্নয়নের একাধিক প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।এদিন প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করেও তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকরা রায়দিঘি স্টেডিয়ামে মুখ্যমন্ত্রীর সভায় ভিড় করেন।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

এদিন তিনি প্রথমে সাগরের রুদ্রনগরে ও রায়দিঘি স্টেডিয়ামে মথুরাপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী বাপি হালদারের সমর্থনে এবং পরে ক্যানিং স্টেডিয়ামে জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী প্রতিমা মণ্ডলের সমর্থনে সভা করেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় বিজেপির সঙ্গে লড়াই নয়, এই জেলায় তৃণমূল প্রার্থীরা নিজেদের ভোটের ব্যবধান বাড়ানোর লড়াই করছেন। একাধিক রাজনৈতিক দলের কুৎসা, অপপ্রচার ও সন্দেশখালি নিয়ে মিথ্যা সম্প্রচার নিয়ে তিনি সরব হন। তিনি বলেন, মথুরাপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন সাংসদ চৌধুরী মোহন জাতুয়া অসুস্থ। তিনি দলীয় কাজে অথবা কোনও সভাতে উপস্থিত থাকতে পারছেন না। সেকারণে মথুরাপুরে নতুন মুখ বাপি হালদার।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

তরুণ তুর্কি বাপি হালদারকে এবছরে প্রার্থী করেছি। রায়দিঘি স্টেডিয়ামের জনসভায় মমতা বলেন, বিজেপি সমস্ত প্রকল্পের টাকা বন্ধ করে রেখেছে। ভোটের সময় যখন আসে, তখন দিল্লির বিজেপি নেতাদের দেখা যায় বাংলায়। তাছাড়া কখনও তাঁদেরকে দেখা যায় না। প্রাকৃতিক দুর্যোগে কখনওই বিজেপিকে পাশে পাননি সুন্দরবনের সাধারণ মানুষ। সবসময় তাঁরা পাশে পেয়েছেন তৃণমূলকে। এদিনের সভা থেকে মমতা দাবি করেন, অভিষেককে বারেবারে ইডি, সিবিআই ডাকছে কেবলমাত্র দিল্লির অঙ্গুলি হেলনেই। ১০০ দিনের টাকা আনতে পারেননি বলেই রাজ্য তার তহবিল থেকে টাকা দিয়েছেন। বিজেপি লক্ষ্মীর ভান্ডার বন্ধ করতে চায়। যতদিন তৃণমূল কংগ্রেস আছে, ততদিন লক্ষ্মীর ভান্ডার চলবে। প্রধানমন্ত্রী চাইলেও বন্ধ হবে না লক্ষ্মীর ভান্ডার। মমতা বলেন, গত দশ বছরে লাগাতার দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে।তাই এবারের লড়াই মানুষের অধিকারকে সামনে রেখে।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

এদিন সভা থেকে নাম না করে অভিজিৎ গাঙ্গুলিকে তাঁর কুরুচিকর মন্তব্যের জন্য কটাক্ষ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কুরুচিকর মন্তব্য করেছেন অভিজিৎ গাঙ্গুলি, সেই কারণে তাকে কটাক্ষ করেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এই জেলায় ছোট-বড় অনেক ব্রিজ করা হয়েছে আমাদের আমলে। আমরা সাগরেও ব্রীজ করে দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি।মমতা বলেন, সুন্দরবন জেলার জন্য মাস্টার প্ল্যান করা হয়েছে। ম্যানগ্ৰোভ লাগলোর কথাও জানালেন। তিনি জানান, নির্বাচন শেষ হওয়ার পর আবেদন করলে সমুদ্র সাথী প্রকল্পের মাধ্যমে দশ হাজার টাকা পাবেন মৎস্যজীবীরা।

নরেন্দ্র মোদি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

আগামী বছরে এগারো ক্লাসে ট্যাপ কেনার টাকা দেব নভেম্বর ও ডিসেম্বরে। ২০২৬ সালে সব বাড়িতে নলের মাধ্যমে বাড়িতে পরিস্রুত পানীয় জল পৌঁছে যাবে। বিজেপি গ্যারান্টির নামে ফোর টোয়েন্টি করছে। মমতা অভিযোগ করেন, মুসলিমদের সঙ্গে তপসিলিদের দাঙ্গা বাধাতে ওবিসি সার্টিফিকেট বাতিল করা হয়েছে।

Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it.

Most Popular

error: Content is protected !!