Sunday, May 19, 2024
spot_img
Homeরাজ্যরাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

আরও তুঙ্গে রাজ্য ও রাজ্যপাল সংঘাত। এবার রাজ্যের সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে দুর্নীতি ও হিংসার অভিযোগ সি ভি আনন্দ বোসের। রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেই অভিযোগ। আর ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিলেন রাজ্যপাল।

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

সম্প্রতি গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী উপাচার্যকে পদ থেকে সরানো নিয়ে আবার প্রকাশ্যে আসে রাজ্য-রাজ্যপালের সংঘাত। সেই ঘটনায় রাজ্যপাল তথা আচার্যের মনে ‘ক্ষোভ পুঞ্জীভূত’ হয়। গত বুধবার ‘রাজ্যপালের রিপোর্ট কার্ড’ নামে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয় ‘‘রাজ্য সরকারের উচ্চশিক্ষা দফতরের বেআইনি আদেশে যে সকল উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ স্তব্ধ করে রেখেছেন, আচার্য তাঁদের সতর্ক করছেন।’’

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

পশ্চিমবঙ্গ সরকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ‘ক্ষমতা কুক্ষিগত’ করতে চাইছে বলেও অভিযোগ করা হয় সেখানে। রাজভবনের বিবৃতিতে সুপ্রিম কোর্ট এবং হাই কোর্টের আদেশের কথা উল্লেখ করে আচার্যের ক্ষমতা ‘স্মরণ’ করানো হয়।শুক্রবার সেই রিপোর্ট কার্ডেরই জবাব দেয় রাজ্য।

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

রাজ্যের বক্তব্য, রাজ্যের সঙ্গে কোনও আলোচনা না করেই একক ভাবে পশ্চিমবঙ্গের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে পরিচালিত করতে চাইছেন রাজ্যপাল বোস। সুপ্রিম কোর্টের পুরনো নির্দেশ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধির প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রাজ্যের চিঠিতে বলা হয়, রাজ্যপাল নিয়ম মেনে চলছেন না। তিনি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে ‘ধ্বংস করে’ রাজ্যের পড়ুয়াদের ‘অনিয়শ্চতা’র মুখে ফেলতে চাইছেন।

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

রাজ্যের আরও অভিযোগ, যোগ্য ব্যক্তিদের উপাচার্য হিসাবে নিয়োগ করছেন না রাজ্যপাল। এর ফলে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে কাঙ্ক্ষিত উন্নতি হচ্ছে না বলেও দাবি করা হয়েছে। তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে দুর্নীতি, হিংসার অভিযোগ তুলে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিলেন রাজ্যপাল। রাজভবনের তরফে এমনই জানানো হয়েছে।

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

রাজভবনের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে যে, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার করা হচ্ছে।রাজভবনের তরফে আরও জানানো হয়েছে, এই সমস্ত অভিযোগের সত্যাসত্য খতিয়ে দেখবে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি। কমিটির নেতৃত্ব দেবেন সুপ্রিম কোর্ট কিংবা কলকাতা হাই কোর্টের কোনও অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি।

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

রাজভবনের এই সিদ্ধান্তে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত আরও তুঙ্গে উঠল বলেই মনে করা হচ্ছে। রাজ্যপালের বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া নিয়ে তাঁকে কটাক্ষ করেছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের অধ্যাপক সংগঠন ওয়েবকুপা। সংগঠনের সহ সভাপতি মণিশঙ্কর মণ্ডল বলেন, “খুব গরম পড়েছে। তাই রাজ্যপালের মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে।

রাজনৈতিক উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার, তদন্তের নির্দেশ রাজ্যপালের

রাজ্যের বিশ্বিবিদ্যালয়গুলিতে যে সুষ্ঠু ভাবে পঠনপাঠন চলছে, তা সহ্য করতে পারছেন না উনি। রাজ্যপাল যতই এই সব করে পঠনপাঠন বন্ধ করার চেষ্টা করুন, আমরা তাঁর এই কাজকে কখনওই সফল হতে দেব না।”

Most Popular

error: Content is protected !!