Sunday, April 14, 2024
spot_img
Homeকলকাতাছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

ছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

বিশ্ব সমাচার, কলকাতা: ভারতের চন্দ্র অভিযানে চাঁদের মাটিতে রোবট ক্যামেরার মাধ্যমে বহু তথ্য পাঠিয়েছিল ইসরোতে। রোবটের ফাংশন দেখে মানুষ উদ্বুদ্ধ হয়েছিল। অনেক ছোট ছোট ছাত্রছাত্রীর মধ্যে আগামী দিনে রোবট বানিয়ে এবং তার সম্বন্ধে বহু তথ্য জেনে বিজ্ঞানী হওয়ার ইচ্ছা জেগেছে।

ছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

রবিবার কলকাতা নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে স্পেস ই ফিক নামে একটি সংস্থা কলকাতা সহ বিভিন্ন জেলার স্কুলের একঝাঁক খুদে বিজ্ঞানী রোবট তৈরি করা ও রোবট সম্বন্ধে জানার ওয়ার্কশপ হল। এই ওয়ার্কশপটি কলকাতার মধ্যে এই প্রথম অনুষ্ঠিত হয়। সাত বছর থেকে ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীরা এতে অংশ নেয়।

ছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

এই ওয়ার্কশপের শিক্ষক ছিলেন খড়্গপুর আইআইটির প্রাক্তন ছাত্র আকাশ দেবনাথ ও অগ্নিভ দাস। অগ্নিভ দাস জানান, রোবোটিক আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স স্পেস সম্বন্ধে শিখলে বাচ্চাদের ভবিষ্যতে কাজে লাগবে। তাই এই ওয়ার্কশপ করা হয়েছে। এখানে কলকাতা জেলা সহ বিভিন্ন জেলা থেকে ৪৫ জন খুদে বিজ্ঞানীদের বয়স ৭ বছর থেকে ১৮ বছর পর্যন্ত। মূলত প্রথম শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের নেওয়া হয়েছে।

ছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

এই রোবট সম্বন্ধে শেখা বা তথ্য জানার জন্য দু’ বছরে একটি কোর্স করতে হয়। তিনি বলেন, বাচ্চাদের এখন থেকে শেখালে ভবিষ্যতে তারা এই সম্বন্ধে অনেক কিছুই জানতে পারবে। ওই ওয়ার্কশপে বারুইপুর নিবাসী দশম শ্রেণির এক ছাত্রী মঞ্জিরা কর জানায়, চন্দ্রাভিযানের রোবটের ভূমিকা ছিল অসাধারণ। রোবটের ক্যামেরার মাধ্যমে বহু তথ্য পাঠিয়েছে ইসরোর কাছে।

ছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

তাই ভবিষ্যতে বিজ্ঞানী হয়ে রোবট দিয়ে আরও কী কী করা যায়, তার গবেষণা করবে। বরানগর নিবাসী দশম শ্রেণির এক ছাত্রী বলে, বড় হয়ে বিজ্ঞানী হতে চাই। বিজ্ঞানী হয়ে মহাকাশের অনেক তথ্য জানতে চাই বা শিখতে চাই। দশম শ্রেণির ছাত্রী অনুস্মিতা জানায়, বড় ভাইয়ের মতো রোবটের কাজ সে করতে চায়।

ছোটদের নিয়ে রোবট তৈরির কর্মশালা হল নেহরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে

কারণ অনেক প্রতিবন্ধী মানুষ আছে তারা চলতে হাঁটতে পারে না। বাড়িতে রোবটের সাহায্যে কাজ করতে পারে। সেই ব্যবস্থাই আগামী দিনে করার ইচ্ছা আছে।রবিবার নেহেরু চিলড্রেন মিউজিয়ামে ওয়ার্কশপ আরম্ভ হয়েছিল দুপুর দু’টো নাগাদ। তা চলে রাত সাড়ে সাতটা পর্যন্ত। এই ওয়ার্কশপেই রোবট বানানো হাতেকলমে শেখানো হয়। শেষে প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর হাতে শংসাপত্র দেওয়া হয়।

Most Popular