Monday, February 26, 2024
Homeজেলাকাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

বিশ্ব সমাচার, কাকদ্বীপ : দীর্ঘদিন পরিস্কার না করায়, আবর্জনা সহ আগাছায় ভরে গিয়েছে কাকদ্বীপ আদালত চত্বর। রক্ষনাবেক্ষণের অভাবে আদালত চত্বরে থাকা জলাশয়ের চতুর্দিকও আগাছায় ভরেছে। আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথমের দিকে কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত একটি ভাড়া বাড়িতে চলতো।

কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

২০১৫ সালে ভাড়া বাড়ি ছেড়ে স্থায়ী বিল্ডিংয়ে এই মডেল আদালত শুরু হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে আদালতের সৌন্দর্যায়নের ভার গ্রহন করে সুন্দরবন উন্নয়ন পর্ষদ। আইনজীবীদের অভিযোগ, সেই সময় একবার আগাছা পরিষ্কার করা হয়েছিল। পুকুরটিও সংস্কার করা হয়। সৌন্দর্যায়নের কাজও শুরু হয়েছিল।

কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

তারপর সব থমকে যায়। বর্তমান আদালত চত্বরের চতুর্দিক পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার অভাবে আগাছায় ভরে গিয়েছে। এমনকি নোংরা আবর্জনাতেও ভর্তি হয়ে গিয়েছে।এবিষয়ে কাকদ্বীপ বার এসোসিয়েশনের সম্পাদক মনোজ পন্ডা বলেন, ২০১৯-২০ সালে একবার পুকুর সংস্কার করা হয়েছিল। সেই সময় আদালত চত্বর জুড়ে একবার আবর্জনাও পরিষ্কার করা হয়।

কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

কিন্তু এরপর থেকে আর আদালতের সৌন্দর্যায়নের দিকে কোন নজর দেওয়া হয়নি। বর্তমান আদালত চত্বরটি আগাছায় ভর্তি হয়ে গিয়েছে। আদালতের ভেতরে থাকা পুকুরের জল নষ্ট হয়ে গিয়ে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে। যার ফলে মশা মাছির উপদ্রব বেড়েছে। এককথায় আদালত চত্বরে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হয়েছে।

কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

তিনি আরও বলেন, এক পশলা বৃষ্টি হলে আদালত চত্বরে মশার উপদ্রবে থাকা যায় না।বিষয়টি নিয়ে বহু দপ্তরে দরবার করা হয়েছে, কিন্তু কোন সুরাহা হয়নি।সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী বঙ্কিমচন্দ্র হাজরা বলেন, “আদালত চত্বরে সৌন্দর্যয়ন করার কাজ সুন্দরবন উন্নয়ন পর্ষদ করেছিল।

কাকদ্বীপ মহকুমা আদালত চত্বরের ভেতরে আবর্জনা, তৈরি হয়েছে বড় বড় আগাছা

কিন্তু আদালত চত্বরে কোন নিকাশি ব্যবস্থা না থাকার কারণে, একটা সমস্যা তৈরি হয়েছে। এছাড়াও সৌন্দর্যায়নের জন্য যে পরিমাণ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল, তা শেষ হয়ে গিয়েছে। তবে বিষয়টি নজরে আছে। খুব শীঘ্রই আদালত চত্বরে সৌন্দর্যায়নের কাজ শুরু করা হবে।”

Most Popular

error: Content is protected !!