Wednesday, February 28, 2024
Homeজেলাবাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

বাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

বান্টি মুখার্জি, বাসন্তী: মহৎ ইচ্ছা থাকলে কী না করা যায়, তারই প্রমাণ দিলেন রানিগড় সিএস প্রাইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মমতা নস্কর বাগ ।যেখানে রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি স্কুলের ভগ্নদশা, পরিকাঠামোর অভাবে ছাত্রছাত্রীরা সরকারি স্কুলগুলি থেকে মুখ ফেরাচ্ছে, ঠিক সেই সময় তিনি একটি প্রত্যন্ত গ্ৰামের স্কুলে ডিজিটাল অ্যাটেন্ডেন্স বা হাজিরা চালু করে সবাইকে অবাক করলেন।

বাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

বুধবার আনুষ্ঠানিক ভাবে এর উদ্বোধন হল। অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট কবি ও সাহিত্যিক দুর্গাদাস মিদ্যা, চন্দন চক্রবর্তী, সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক শ্যামল ভট্টাচার্য ও কর্নেল ভূপাল লাহিড়ী মেমোরিয়াল ট্রাস্টের কর্ণধার বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও প্রাক্তন তথ্যপ্রযুক্তিবিদ, শুভ্রেন্দু রায়চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

বাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

ছিলেন শিক্ষারত্ন শিক্ষক বিবেকানন্দ পাল , বিশিষ্ট সমাজসেবী স্বপন পট্টনায়েক, পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য দিলীপ নস্কর সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। প্রধান শিক্ষিকা মমতা নস্কর বাগ জানান, বাচ্চারা বিদ্যালয়ে এল কি না, তা নিয়ে চিন্তায় থাকেন তাদের অভিভাবকরা। আমাকে তাঁরা বারবার ফোন করেন। আমি সবসময় ফোন ধরতে পারি না।

বাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

বিষয়টি আমাকে ভাবিয়ে তোলে। তাই স্কুল কমিটির সঙ্গে কথা বলে এই পরিষেবা চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর ফলে বাচ্চারা কখন বিদ্যালয়ে আসছে বা কখন বিদ্যালয় থেকে বাড়িতে ফিরছে, তা এসএমএসের মাধ্যমে তাদের অভিভাবকদের ফোনে পৌঁছে যাবে। তার ফলে অনেকটাই নিশ্চিত হতে পারবেন বাচ্চাদের অভিভাবকরা।

বাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

মমতা নস্কর বাগ জানান, বেসরকারি স্কুলের ছেলেমেয়েরা জামাপ্যান্টের সঙ্গে টাইও পরে। আমাদের বিদ্যালয়ের ছেলেমেয়েরা যাতে এগুলো দেখে মনখারাপ না করে, তাই তাদেরকে একটি করে টাইয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি বলেন, সরকার মিড ডে মিলের সঙ্গে বাচ্চাদের পোশাক, বইখাতা সবই দিচ্ছে। তাহলে বাচ্চারা কেন সরকারি স্কুলে আসবে না?

বাসন্তীর রানিগড়ের সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের ডিজিটাল হাজিরা চালু

বিশিষ্ট সমাজসেবী স্বপন পট্টনায়েক বলেন, যেভাবে একের পর এক সরকারি স্কুল বন্ধ হতে বসেছে, সেখানে মাত্র ১৭১ জন ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে এমন একটি উদ্যোগকে সাধুবাদ না জানিয়ে থাকা যায় না। শিক্ষারত্ন শিক্ষক বিবেকানন্দ পাল বলেন, প্রত্যোন্ত গ্ৰামের একটি স্কুলে এমন পরিষেবা চালু করা সত্যি গর্বের ব্যাপার।

Most Popular

error: Content is protected !!