Wednesday, February 28, 2024
Homeজেলাগঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

রবীন্দ্রনাথ মণ্ডল, গঙ্গাসাগর: এবছর গঙ্গাসাগর মেলা মিনি ভারতবর্ষে পরিণত হয়েছে। গঙ্গাসাগর মেলার ইতিহাসের সব রেকর্ড ভেঙে সর্বাধিক পুণ্যার্থী সমাগম হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত পাওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থী গঙ্গাসাগরে স্নান করে কপিলমুনির আশ্রমে পুজো দিয়ে ফিরে যাচ্ছেন। জানালেন রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস।

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের ছয় মন্ত্রী। উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, বঙ্কিমচন্দ্র হাজরা, স্নেহাশিস চক্রবর্তী, সুজিত বসু, ইন্দ্রনীল সেন, জেলাশাসক সুমিত গুপ্তা, সুন্দরবন পুলিশ জেলার এসপি কোটেশ্বর রাও। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নজরদারি এবং তাঁর নির্দেশ মতো মন্ত্রীরা, জেলা প্রশাসন,

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

পুলিশ প্রশাসন এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলি সক্রিয়ভাবে কাজ করার জন্য এবার গঙ্গাসাগর মেলাকে অতি সুশৃংখল ও নিরাপদ করা সম্ভব হয়েছে। এখনও পর্যন্ত ১৩ হাজার ৬৭২ জন তাঁদের আত্মীয়দের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিলেন। পুলিশ প্রশাসন ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলির তৎপরতায় ১৩ হাজার ৬৫১ জনকে তাঁদের পরিবারের সঙ্গে মিলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

এখনও পর্যন্ত হারিয়ে যাওয়া ২১ জন পুণ্যার্থীকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়নি। এখনও পর্যন্ত ২৯৭ জন পুণ্যার্থী সাগরদ্বীপের বিভিন্ন হাসপাতালে অসুস্থ হয়ে ভর্তি হয়েছেন। ৩০৪২ জন পুণ্যার্থীকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ৫১ জন পুণ্যার্থীকে উন্নত চিকিৎসা পরিষেবার জন্য কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

মোট আটজন অসুস্থ পুণ্যার্থীকে এয়ার লিফটের মাধ্যমে জরুরি ভিত্তিতে কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে সাতজনকে এবং এসএসকেএমে একজনকে পাঠানো হয়েছে। ওয়াটার অ্যাম্বুলেন্সের মাধ্যমে কাকদ্বীপ হাসপাতালে মোট সাতজন অসুস্থ তীর্থযাত্রীদের স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

আগত পুণ্যার্থীদের মধ্যে সাগরে আসার পথে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। ৪২৩টি পকেটমারের ঘটনা ঘটেছে, যার ৪০২টির ক্ষেত্রে খোয়া যাওয়া বস্তু উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। ৮৭৬ জনকে বিভিন্ন অপরাধমূলক কাজের জন্য গ্রেফতার করা হয়েছে। শুদ্ধিকরণ প্রতিবার, গঙ্গাসাগর অঙ্গীকার— এই স্লোগানকে সামনে রেখে গঙ্গাসাগর মেলার সূচনা করা হয়েছিল।

গঙ্গাসাগরে ডুব ১ কোটি ১০ লক্ষ পুণ্যার্থীর

আজ তা শেষের পথে। মঙ্গলবার সমুদ্রতটে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গঙ্গাসাগর সাফাই অভিযান করা হয় এবং সমুদ্রতটকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়। সব মিলিয়ে এবারের গঙ্গাসাগর মেলা যেন মিনি ভারতবর্ষে পরিণত হয়েছিল।

Most Popular

error: Content is protected !!