Monday, February 26, 2024
Homeরাজ্যরেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

স্টাফ রিপোর্টার: রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে বনগাঁ পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান শংকর আঢ্যকে শুক্রবার গভীর রাতে গ্রেপ্তার করেছে ইডি।এদিন তাঁর বাড়ি ও শ্বশুরবাড়িতে ১৬ ঘণ্টা ধরে তল্লাশি চলে। এর পর রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ তাঁকে গ্রেপ্তার করেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা। তবে তাঁকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়ার পথে ফের আক্রমণের মুখে পড়ে ইডি। শংকর আঢ্যর অনুগামীরা ইডির কনভয়ে ইট ছোঁড়েন বলে অভিযোগ।

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা তাঁদের দিকে লাঠি উঁচিয়ে তাড়া করে। পরে বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।শনিবার তাঁকে ব্যাঙ্কশাল আদালতে পেশ করে ইডি আধিকারিকরা। আদালতে ইডি দাবি করেন, শংকর আঢ্যর ১৯টি বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময়ের ব্যবসা রয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময়ের নামে তিনি প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা বিদেশে ‘লেনদেন’ করেছেন ।

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

এর মধ্যে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা রেশন দুর্নীতির।২০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ৯ হাজার থেকে ১০ হাজার কোটি টাকা ‘দুর্নীতি’কাণ্ডে ধৃত জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের।ইডির দাবি, তার মধ্যে ২ হাজার কোটি টাকা বাংলাদেশ এবং দুবাইতে পাচার করা হয়েছে।ইডির দাবি, গত ১০ বছর ধরে এই ‘দুর্নীতি’ চলছে।

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

এদিন ইডির মুখে ১০ হাজার কোটি টাকার কেলেঙ্কারির কথা শুনে বিচারক এজলাসে বলেন, এত টাকার লেনদেন। কে বলবে পশ্চিমবঙ্গ একটা গরিব রাজ্য! যদিও শংকর আঢ্যর আইনজীবী বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময়কে অপরাধ হিসাবে উল্লেখের তীব্র বিরোধিতা করেন। তাঁর দাবি, বিদেশি মুদ্রা বিনিময় অপরাধ নয়। বিদেশি মুদ্রা বিনিময় ক্ষেত্রে বেনিয়ম হলে তা রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মারফত আসবে।

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

ইডি কেন গ্রেপ্তার করল তাঁর মক্কেলকে (শংকর আঢ্য) পালটা সওয়াল আইনজীবীর।শনিবার আদালতে রেশন দুর্নীতিতে ধৃত মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয়র লেখা চিঠির কথাও উল্লেখ করে ইডি। তদন্তকারীরা জানান, হাসপাতালে বসে মেয়েকে একটি চিঠি পাঠান জ্যোতিপ্রিয়। সেটি সিআরপিএফ হাতে পড়ে। পরিস্থিতি এমন হয় যে সিআরপিএফ চিঠিটি খুলে দেখতে বাধ্য হন।

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

সেই চিঠিতে নাম ছিল শংকর আঢ্য, শেখ শাহজাহান, রবীন্দ্র এবং ডাকুর নামে চারজনের। ওই চিঠিই তদন্তে নয়া মোড় দেয়। এর পর তল্লাশির পর শংকর আঢ্যকে গ্রেপ্তার করে ইডি। কেন্দ্রীয় তদন্তকারীর বিস্ফোরক দাবির পরেও জামিনের আবেদন জানান শংকর আঢ্যর আইনজীবী জাকির হোসেন। আইনজীবী বলেন, তিনি একজন ব্যবসায়ী। রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় তাঁকে হেনস্থা করছে ইডি।

রেশন দুর্নীতি ১০ হাজার কোটির, বিদেশে পাচার ২০ হাজার কোটি, দাবি ইডির

তবে সে আবেদন খারিজ করে দেন বিচারক।১৪ দিনের ইডি হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত।এদিন সকালে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে যান স্ত্রী, মেয়ে ও পরিবারের ঘনিষ্ঠরা। সেখানেই শংকর আঢ্যর মেয়ে চ্যালেঞ্জের সুরে বলেন, চক্রান্ত করা হয়েছে বাবার বিরুদ্ধে। তদন্ত যত এগোবে, জবাব দেওয়া হবে। স্ত্রীর দাবি, স্বামী নির্দোষ, তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে।

Most Popular

error: Content is protected !!