Sunday, April 14, 2024
spot_img
Homeজেলামুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

আগামী ৮ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে গঙ্গাসাগর মেলা। চলবে ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত। আর এই গঙ্গাসাগর মেলার প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে বুধবার নবান্নে বৈঠক সারলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী থেকে পুলিশ ও প্রশাসনের আধিকারিকরা। মেলা উপলক্ষে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, সে ব্যাপারে আলোচনা হয় এদিন।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

পুণ্যার্থীদের সাগরে যেতে যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তাদের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে যাতে কোনও খামতি না থাকে, সে ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে এদিন।এদিন মেলার প্রস্তুতি খতিয়ে দেখেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, “গঙ্গাসাগর ভারতের সবচেয়ে বড় মেলা। অন্তত ৪০ লক্ষ মানুষের সমাগম হবে।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

সেখানে আগত দেশ-বিদেশের পুণ্যার্থীদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।প্রতিদিন ১৫-১৬টি অতিরিক্ত বাস চলবে। সবমিলিয়ে ২ হাজার ২৫০টি সরকারি বাস যাতায়াত করবে। চলবে অতিরিক্ত ৬৬টি ট্রেন। শিয়ালদহ থেকে পুণ্যার্থীদের জন্য স্পেশাল ট্রেন থাকবে। থাকছে অতিরিক্ত লঞ্চের ব্যবস্থাও।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

২২টি জেটিকে মজবুত করা হচ্ছে। শুধু যাতায়াতের ব্যবস্থা নয়, মেলার নিরাপত্তার জন্য অতিরিক্ত সিসিটিভির ব্যবস্থা থাকছে। ১ হাজার ১৫০টি সিসিটিভি থাকবে মেলা প্রাঙ্গনে। থাকছে জিপিএস ও স্যাটেলাইট ট্র্যাকিংয়ের ব্যবস্থা। শুধু যন্ত্রের মাধ্যমে নজরদারি নয়, অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মেলায় থাকবে পর্যাপ্ত পুলিশ। ২ হাজার ৪০০ জন সিভিল ডিফেন্সের কর্মী।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

প্রচুর সিভিক ভলান্টিয়ারও। এছাড়া মেলায় প্রস্তুত থাকবে অ্যাম্বুল্যান্স।এছাড়া প্রতিটি জলযানের ওপর নজর রাখতে ব্যবহার করা হবে মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো-র প্রযুক্তি। স্যাটেলাইট ট্র্যাকিং-এর ব্যবস্থা থাকবে বলে জানানো হয়েছে।পাশাপাশি মেলায় গিয়ে দুর্ঘটনায়. কারও মৃত্যু হলে ৫ লক্ষ টাকার বিমার সুবিধাও পাবেন পুণ্যার্থীরা।”

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

ভিআইপি-রা পাইলট কার নিয়ে গেলে অযথা অনেক সমস্যা হতে পারে, সে কথা এদিন মনে করিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বার্তা দিয়েছেন, যাতে প্রয়োজন ছাড়া পাইলট কার নিয়ে ভিআইপি-রা গঙ্গাসাগরে না যান।২ জানুয়ারির মধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হবে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।এদিকে গঙ্গাসাগরের যাত্রাপথে মুড়িগঙ্গার বুকে জেগে উঠেছে নতুন চর।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

বুধবার নবান্নের বৈঠকে সে কথা জানতে পারলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সাগরের বিধায়ক তথা সুন্দরবন উন্নয়নমন্ত্রী বঙ্কিম হাজরা বৈঠকে এই চর জেগে ওঠার বিষয়টি উত্থাপন করেন। তিনি বলেন, ‘‘২০১৩ সালে বাংলাদেশের একটি ট্রলার ডুবে গিয়েছিল। সেটিকে কেন্দ্র করে কচুবেড়িয়াতে একটি সিলটেশন দেখা দিয়েছে। সেচমন্ত্রী, সচিব, জেলাশাসক— সবাই বিষয়টি নিয়ে কাজ করছেন।’’

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

বৈঠকে হাজির নৌবাহিনীর প্রতিনিধির কাছে এ বিষয়ে তাদের অবস্থান জানতে চান মুখ্যমন্ত্রী। নৌবাহিনীর আধিকারিকরা জানান, এটি প্রযুক্তিগত বিষয়। তাই বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের কাছে কোনও সমাধান নেই। তবে এই বিষয়ে ড্রেজিং কর্পোরেশনকে চিঠি লিখে এই বিষয়ে আবেদন করা যেতে পারে বলেই মুখ্যমন্ত্রীকে জানান আধিকারিকরা।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

সব শুনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘তা হলে তো এই বিষয়টি সময়সাপেক্ষ। এই গঙ্গাসাগর মেলার আগে তা সম্ভব হবে না। গঙ্গাসাগর মেলা মিটে যাওয়ার পর যেন এই জাহাজটা ক্লিয়ার করে দেওয়া হয়, সেটা দেখে নিতে হবে। এটা আমাদের জানা ছিল না। ২০১৩ সালে জাহাজটা ডুবে গেছিল। তারপর সেখান থেকে চর সৃষ্টি হয়েছে। তাহলে গঙ্গাসাগরে যেতে সমস্যা হবে।কীভাবে জায়গাটা মার্কড করবে, তার জন্য আমরা পরিদর্শন করব।’’

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন তোলেন, ‘‘এত বছর ধরে জাহাজটি ডুবে থাকা সত্ত্বেও কেন তা নজরে আসেনি।’’ তাঁকে জানানো হয়, গত বছর পর্যন্ত এই চরটি প্রশাসনের নজরে আসেনি। উদ্বেগ প্রকাশ করে মুখমন্ত্রী বলেন, ‘‘এই চরটির জন্য কোনও দুর্ঘটনা যেন না ঘটে।’’ সেনাবাহিনীর তরফে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন করা হয় যে, যেখানে জাহাজডুবি হয়ে চর জেগে উঠেছে।

মুড়িগঙ্গায় বিপজ্জনক চর, মন্ত্রীর কাছে জানতে পেরে উদ্বেগ প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

জায়গাটিকে চিহ্নিত করে দেওয়া হোক। এমনকি রাতেও সেই চিহ্নিত জায়গাটি যাতে বোঝা যায়, তার ব্যবস্থাও করা হোক। তা হলে দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব হবে। মুখ্যমন্ত্রী সেচ দফতরের সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন চরটি চিহ্নিত করতে।

Most Popular