Tuesday, February 27, 2024
Homeরাজ্যলক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

স্টাফ রিপোর্টার : চলতি মাসের ২৪ তারিখ কলকাতায় বসতে চলেছে লক্ষ কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর। ব্রিগেডে হবে মহা জমায়েত।তবে তার আগেই সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর বসল হুগলির মাহেশে। রবিবার দেশ ও রাজ্যের মঙ্গল কামনায় বিশ্বশান্তি যজ্ঞ ও দুই হাজার কন্ঠে গীতাপাঠের আসর বসে মাহেশের জগন্নাথ মন্দিরে।

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

বিভিন্ন জেলা থেকে ভক্ত ও গীতাপ্রেমীরা ওই পীঠে অংশ নেয়। সেখানে আমন্ত্রিত ছিলেন তৃণমূলের একাধিক নেতানেত্রী।সকালে বিশ্বশান্তি যজ্ঞের পর সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় গীতাপাঠ। অনুষ্ঠানের সূচনা করেন পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী প্রদীপ মজুমদার। যজ্ঞে বসেন সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক সুদীপ্ত রায়, প্রাক্তন রাজ্যপাল শ্যামল সেন, জেলাশাসক, মহকুমা শাসক-সহ প্রশাসনের আধিকারিকরা।গীতাপাঠে আসরে যোগদান প্রসঙ্গে সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমন্ত্রিত ছিলেন। আমাকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল।

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

মুখ্যমন্ত্রী আমাকে তাঁর প্রতিনিধি হিসেবে আসতে বলেছিলেন। বিশ্বশান্তির জন্য় আয়োজন হয়েছে। তাই যোগ দিলাম।” এর মধ্যে রাজনীতি আনতে চান না সাংসদ। তাঁর কথায়, গত কয়েক মাস ধরেই এই আসরের আয়োজন করা হয়েছে। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

এদিকে মন্দিরের প্রধান সেবায়েত সৌমেন অধিকারী বলেন,” মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাহেশকে পর্যটন কেন্দ্রের আওতায় আনার পরেই জগন্নাথ মন্দির ও রথের খ্যাতি আরও ছড়িয়েছে। তাই দেশ ও রাজ্যের কল্যাণে এই আয়োজন।”এদিকে এই যজ্ঞে বিজেপির কাউকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বলে খবর।

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

বিজেপির দাবি, ভোট ব্যাঙ্ক হারানোর ভয়ে এসব করছে তৃণমূল। বিজেপিকে আমন্ত্রণ না জানানো নিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতি কলকাতার বুকে লক্ষ কণ্ঠে গীত পাঠ হওয়ার কথা রয়েছে। তার প্রস্তুতিও চলছে। এখন হঠাৎ করে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের গীতা প্রেম জেগে উঠেছে।

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

যাঁরা আগে রেড শুধু নামাজ পড়ত, এখন যদি গীতা পড়ে তাহলে আমাদের কোনও আপত্তি নেই। আসলে ওরা এখন চাপে পড়ে করছেন। ভোট ব্যাঙ্ক হারিয়ে যাওয়ার ভয়েই এসব করছেন। বিজেপি নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো নিয়ে আপত্তি নেই। কিন্তু, গীতা পড়ে যদি সেই অনুযায়ী কাজ করেন তাহলে হিন্দু হিসাবে তো জন্ম সার্থক হবে।”

লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠের আগে মাহেশে সহস্র কণ্ঠে গীতাপাঠের আসর

এ প্রসঙ্গে বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘এঁরা যে ভাবে রাজ্য জুড়ে দুর্নীতি করছে, গীতাপাঠ করলে এদের কোনও পাপক্ষয় হবে না।’

Most Popular

error: Content is protected !!