Friday, May 24, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজ্য‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

স্টাফ রিপোর্টার: আদালতে শরীর খারাপের কথা বলে জামিনের আর্জি জানালেও প্রতি বারই তা খারিজ হয়েছে। আবারও তিহাড় জেল থেকে আসানসোল সিবিআই আদালতে অসুস্থতার কথা জানিয়ে জামিনের জন্য বিচারককে কাতর আর্জি জানালেন অনুব্রত মণ্ডল।জেল হেফাজতের মেয়াদ শেষ হওয়ায় বুধবার তিহাড়ে বন্দি তৃণমূল নেতাকে আসানসোলের আদালতে ভার্চুয়ালি হাজির করানো হয়।

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

সেখানে শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে জামিনের আবেদন করেন অনুব্রত। বিচারকের কাছে অনুব্রত কাতর আর্জি করেন, “স্যর শরীর ভাল নেই। হাতে পায়ে যন্ত্রণা। মাথায় ব্যথা। ব্যালেন্স পাচ্ছি না। সুগার ২৫০।এবার বেল দিয়ে দিন স্যর। ৯ মাস হয়ে গেল।” বিচারক বলেন, “আপনার তো হাইকোর্ট থেকে জামিন খারিজ হয়েছে।

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

অন্য মামলায় আপনি তিহাড় জেলে আছেন। আমি চাইলেই তো জামিন দিতে পারি না। আপনার আইনজীবীকে পিটিশন জমা করতে বলুন। দু’পক্ষের শুনে কিছু বলতে পারব।আমরা আগেও ভাল চিকিৎসার জন্য তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষকে বলেছি। আবারও ভাল চিকিৎসার জন্য অর্ডার কপিতে লিখে দিচ্ছি।”

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

অনুব্রতর জামিনের আর্জি এদিন খারিজ হয়ে যায় বটে, তবে কেষ্ট দৃশ্যত ছিলেন বিধ্বস্ত।অনুব্রতের সঙ্গে কথা বলার পরেই তাঁর এককালের দেহরক্ষী সহগল হোসেনের সঙ্গেও কথা বলেন বিচারক। গরু পাচার মামলায় ধৃত সহগলও বর্তমানে দিল্লির তিহাড় জেলে রয়েছেন।

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

তাঁর কাছ থেকে সিবিআইয়ের বাজেয়াপ্ত করা গয়না ফেরতের আবেদন নিয়ে শুনানি হয়েছে বুধবার। সিবিআই-ও সহগলের কিছু গয়না ফেরত দিতে রাজি হয়েছে। কেন্দ্রীয় সংস্থার তদন্তকারী অফিসার সুশান্ত ভট্টাচার্য বাজেয়াপ্ত করা গয়নার তালিকা আদালতে পেশ করেন।

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

জানান, সহগলের কাছ থেকে মোট ৩৬ লক্ষ ৬৭ হাজার ৭০৯ টাকার গয়না বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তার মধ্যে তিনটি গয়না ফেরত দেওয়া যেতে পারে। এর মধ্যে ৭০ হাজার টাকার সোনার গয়না। আর একটি ১৭ হাজার টাকার রুপোর গয়না। সিবিআই আদালতে জানিয়েছে, যে গয়নাগুলির বৈধ রসিদ রয়েছে, সেগুলিই ফেরত দেওয়া হচ্ছে।

‘‘মাথায় ভীষণ যন্ত্রণা, ব্যালান্স পাচ্ছি না, জামিনটা দিয়ে দিন’, কাতর আর্জি কেষ্টর

অনেক গয়না রয়েছে, যেগুলির কোনও রসিদ নেই, আবার থাকলেও তা ভুয়ো। সেই সব গয়না ফেরত দেওয়া সম্ভব নয়। তিহাড়ে গিয়ে অনুব্রত এবং সহগলকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরাও করতে চেয়েছে সিবিআই। বিচারক তার অনুমতি দিয়েছেন।

Most Popular

error: Content is protected !!