Friday, May 24, 2024
spot_img
spot_img
Homeজেলাবিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

অমিত মণ্ডল, বকখালি: ৫ জুন, বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাসে থাকলো বকখালির পিকনিক মাঠ। দাঁড়িয়ে থাকল কঙ্কালসার ঝাউগাছগুলি। অথচ অতীতে বকখালির এই পিকনিক মাঠ ছিল সবুজে ঘেরা। যা মন কাড়ত স্থানীয় মানুষ থেকে পর্যটকদের। সারি সারি ঝাউগাছের নীচে পর্যটকরা এসে বিনোদনে মাততেন। আর সেই পিকনিক মাঠ এখন মরা ঝাউ গাছের সারিতে ফ্যাকাসে।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

সোমবার বিশ্ব পরিবেশ দিবসে এমনই চিত্র দেখে স্তম্ভিত স্থানীয় মানুষ থেকে পর্যটকরা। অতীতে আমফান, ইয়াসের মতো প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে বকখালির বিভিন্ন জায়গায় বনাঞ্চলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল। এরপরই প্রশাসনের পক্ষ থেকে একাধিকবার নতুন করে গাছ লাগানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

কিন্তু তা এখনও পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয়নি। চলতি বছরে বকখালি বনবিভাগের অধীন বনবিবি মন্দির লাগোয়া জঙ্গলের অধিকাংশ আগুনের লেলিহান শিখায় ভস্মীভূত হয়ে যায়। বনদপ্তরের পক্ষ থেকে গভীর জঙ্গলে নতুন করে গাছ লাগানো হলেও ফাঁকা পড়ে থাকে বকখালি পিকনিক মাঠ।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

বিশ্ব পরিবেশের দিনও মরা ঝাউ গাছগুলি পিকনিক মাঠের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে কঙ্কালসার শরীর নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকল। এই ছবিটা দেখে কিছুটা হলেও হতাশ হয়েছেন পর্যটকরা। বেলঘরিয়া থেকে বকখালিতে বেড়াতে আসা নন্দিনী সেনগুপ্ত বলেন, বিশ্ব পরিবেশ দিবসে যেখানে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন জায়গায় সাধারণ মানুষকে গাছ লাগানোর কথা বলা হচ্ছে, সেখানে বকখালির পিকনিক মাঠের এই চিত্রটা যেন কিছুটা হতাশার।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

স্থানীয় বাসিন্দারা ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন প্রশাসনের বিরুদ্ধে। স্থানীয় বাসিন্দা বিশ্বেশ্বর প্রামাণিক বলেন, গঙ্গাসাগর এবং বকখালিকে সাজানোর জন্য গঙ্গাসাগর বকখালি উন্নয়ন পর্ষদ তৈরি করা হয়েছে। সেই পর্ষদের পক্ষ থেকে বারবার বকখালির উন্নয়নের কথা বলা হলেও এখনও পর্যন্ত বকখালির পিকনিক মাঠের চিত্র একটুও বদলায়নি।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

যদিও বিষয়টি নিয়ে গঙ্গাসাগর বকখালি উন্নয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শ্রীমন্তকুমার মালি বলেন, ওটা রিজার্ভ ফরেস্টের এলাকা। তাই ওখানে গাছ লাগাবে বনদপ্তর। এ বিষয়ে বকখালি বনদপ্তরের রেঞ্জার বিমলকুমার মাইতির সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাইরে আছেন বলে এ বিষয়ে কোনও কথা বলতে চাননি।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসেও ফ্যাকাশে বকখালির পিকনিক মাঠ, দাঁড়িয়ে কঙ্কালসার ঝাউগাছ

তবে সাধারণ মানুষের একটা প্রশ্ন থেকেই গেল। যেখানে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবসের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে গাছ লাগানোর বার্তা দেওয়া হচ্ছে, সেখানে বকখালির মতো একটি ঐতিহ্যবাহী পর্যটন কেন্দ্রের পিকনিক মাঠে এই কঙ্কালসার চিত্র আর কতদিন দেখতে হবে? আমফান, ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত এই পিকনিক মাঠ আবার কবে সবুজে ভরে উঠব?

Most Popular

error: Content is protected !!