Tuesday, May 28, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজ্যপ্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের ‘নব জোয়ারের ব্যালট’! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

স্টাফ রিপোর্টার: পঞ্চায়েত নির্বাচনে কাকে তৃণমূলের প্রার্থী চান, মতামত দিতে পারবেন সাধারণ মানুষ। ‘মানুষের পঞ্চায়েত’ গড়তে জনতা-জনার্দনকে দলের প্রার্থী বাছাইয়ের প্রক্রিয়ায় জুড়ে নিচ্ছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে ৬০ দিনের ‘তৃণমূলে নব জোয়ার’ কর্মসূচি। প্রথম দিন কোচবিহারের দিনহাটার মঞ্চ থেকে দলের প্রার্থী সংগ্রহ অভিযানের সূচনা করলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

দিনহাটায় অভিষেকের সভার জন্য যে মঞ্চ তৈরি করা হয়েছিল, তার পিছনেই রাখা ছিল একটি ব্যালট বাক্স। এদিন কোচবিহারের সভা থেকে অভিষেক বলেন, ‘‘পঞ্চায়েতে আপনার বুথে কে প্রার্থী হবেন, তা তৃণমূল ঠিক করবে না। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক করবে না। আপনারা যাকে প্রার্থী বাছবেন, তাঁকেই তৃণমূল সর্বশক্তি দিয়ে জিতিয়ে আনবে।এই ব্যালট পেপার সকলকে দেওয়া হবে। সেখানে জেলা পরিষদ, পঞ্চায়েত সমিতি ও গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রার্থীর নাম জানানো যাবে। এটি গোপান ব্যালট। আপনার নাম বা কিছু থাকবে না।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

এটি পূরণ করে ব্যালট বক্সে ফেলে দিন। তারপর মানুষ যাঁকে মান্যতা দেবে, তৃণমূল তাঁকেই প্রার্থী করে জেতাবে। বাংলায় ৩৩৪৩টি পঞ্চায়েত রয়েছে। সব জায়গায় আমি যাব। মানুষের পঞ্চায়েত গড়ে ছাড়ব।’’ যাঁরা ব্যালট বক্সে ভোট দিতে পারবেন না তঁদের জন্য টোল ফ্রি নম্বরও দিয়েছেন তিনি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন বলেছেন, যাঁরা ব্যালট বক্সে ভোট দিতে পারবেন না, তাঁদের জন্য ৭৮৮৭৭৭৮৮৭৭ নম্বরে ফোন করে গ্রাম পঞ্চায়েতের নাম, বুথের নাম ও আসন নম্বর উল্লেখ করে পছন্দের প্রার্থীর নাম জানান।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

একশোটি ভোটের মধ্যে ৫১ জন মানুষ যে প্রার্থীকে চাইবেন তাঁকেই শাসক দল সেই এলাকার প্রার্থী করবে। শুধু দিনহাটা নয়, রাজ্যের সব পঞ্চায়েতে এ ভাবেই তৃণমূলের প্রার্থী বাছাই হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।পঞ্চায়েতে কেমন প্রার্থী বাছাই করা উচিত মানুষের? এ নিয়েও নিজের মতামত জানিয়েছেন অভিষেক। বলেন, ‘‘এমন এক জনকে প্রার্থী করুন, যিনি আগামী ৫ বছর দলমত নির্বিশেষে পরিষেবা দেবেন। মানুষের পঞ্চায়েত গড়বেন। প্রগতিশীল পঞ্চায়েত গড়বেন।’’

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থী বাছাইয়ের পাশাপাশি প্রধান, উপপ্রধান কে হবেন, তা মানুষই ঠিক করবে বলে দিনহাটার মাটিতে দাঁড়িয়ে ‘কথা দিয়েছেন’ অভিষেক।পাশাপাশি এদিন সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপিকে নিশানা করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘আগামী পঞ্চায়েতে কোনও ধর্মীয় ভাবাবেগ নয়, মোদীজির ৫৬ ইঞ্চির ছাতি নয়, বালাকোটের নামে নয়, আপনার বাড়ির শিশুর উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য আপনাকে ভোট দিতে হবে।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

গ্রামে যাতে রাস্তা হয় এবং একশো দিনের কাজের টাকার দাবি যাতে দিল্লির বুক থেকে আপনি ছিনিয়ে আনতে পারেন, সেই জন্য ভোট দিতে হবে। নিজের অধিকার বুঝে নিতে, নিজের প্রার্থীকে বেছে নিতে ভোট দিন।’ এদিকে কর্মসূচির প্রথম দিনেই চরম বিশৃঙ্খলা দেখা গেল সিতাই গোঁসানিমারি হাই স্কুল মাঠে। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক সভাস্থল ছেড়ে পরের সভাস্থল শীতলখুচির উদ্দেশে রওনা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোট দেওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি শুরু হয়। এক সঙ্গে সবাই ভোট দিতে উঠে যান মঞ্চে। এক পক্ষ ব্যালট বাক্স নিয়ে টানাহেঁচড়া শুরু করে।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

অন্য পক্ষ ভোট না দিতে পারার আশঙ্কায় ব্যালট কাগজ ছিঁড়তে শুরু করে। শুরু হয় মারামারি এবং ধাক্কাধাক্কি।ভেঙে ফেলা হয় ব্যালট বাক্স। ধাক্কাধাক্কিতে জখম হন কয়েকজন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে ঠেলেঠুলে তৃণমূল কর্মী এবং সমর্থকদের মঞ্চ থেকে নীচে নামায়। কিন্তু পুলিশের সামনে হাতাহাতি শুরু হয় তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর।তবে ঘটনার খবর পেয়ে ইতিমধ্যে রিপোর্ট তলব করেছেন খোদ অভিষেক।তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘‘যদি কেউ ভাবেন, গায়ের জোরে, ব্যালট বাক্স ভেঙে নিজেদের নাম ঢুকিয়ে প্রার্থী হবেন, তাহলে তাঁরা মূর্খের স্বর্গে বাস করছেন।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

কারণ, পাহারাদারের নাম অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আমি এই কারণেই তৃণমূলের ‘নবজোয়ার’ শুরু করেছি।নিজে থেকে কাল ভোট করাব। সিতাইয়ের গোঁসাইবাড়ির মাঠে আবার ভোটগ্রহণ হবে।এর সঙ্গে দলের কেউ জড়িত থাকলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কেউ যদি মনে করে জোর করে গণ্ডগোল করব, গা জোয়ারি-দাদাগিরি করব, তা চলবে না।’’ যদিও এই ব্যালট লুটকে কটাক্ষ করেছেন বিরোধীরা।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “তৃণমূলের জনজোয়ারের মাজা ভেঙে গেছে তৃণমূলের সভায় এত পুলিশ রয়েছে। অভিষেকের সভায় সরকারি ব্যবস্থাপনা। নির্বাচন কমিশনের ভোট লুঠ হয়েছে ২০১৮ সালে, তৃণমূলের ভোট লুঠ হয়েছে ২০২৩ সালে। পিসির ভাটার টান, আর ভাইপোর জনজোয়ার। কত বিশাল বিশাল তাবু, সেটা দেখতে লোক আসছে।

প্রথম দিনেই ছিনতাই তৃণমূলের 'নব জোয়ারের ব্যালট'! ফের ভোটের হুঁশিয়ারি অভিষেকের

আজ ভোটের বক্স লুঠ হয়েছে, এরপর তাবু, গাড়ির টায়ারও লুঠ হবে। শয়ে শয়ে কোটি টাকা কর্পোরেটের মত খরচ হচ্ছে। এটা জনজোয়ার না, অভিষেক এর যাত্রা। এটাতে লুঠের মহড়া চলছে। ২০২৩ এর ভোটে প্রার্থী দিতে পারবেনা। এটা গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নয়, তৃণমূল যে লুটেরাদের পার্টি সেটা প্রমাণিত হল।”

Most Popular

error: Content is protected !!