Sunday, June 16, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজনীতি১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

স্টাফ রিপোর্টার : কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগে ধর্নায় বসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মঞ্চ থেকেই দিল্লিতে গিয়ে বসার কথা বলেছিলেন তিনি। কার্যত সেই একই হুঙ্কার শোনা গেল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলায়।শনিবার আলিপুরদুয়ারে জনসভা ছিল তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আর সেই সভা থেকেই নতুন পরিকল্পনা ঘোষণা করেন তিনি।এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আবাস যোজনার টাকা আটকে রেখেছে। ১১ লক্ষ ৩৬ হাজারের লিস্ট যা রাজ্য কেন্দ্রকে পাঠিয়েছে, একটাও যদি দুর্নীতি হয় তাহলে তোমাদের টাকা দিতে হবে না। রাস্তার টাকা আটকে রেখেছে।

১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

বাংলার বিরোধী দলনেতা কেন্দ্রকে চিঠি লিখে বলছে বাংলার টাকা বন্ধ করে দাও। মানুষকে দুর্বল ভাবলে অধিকারের টাকা বন্ধ করে দেওয়া হয়। তাই আপনাদের যারা ভাতা মারছে তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করুন। এই জেলা থেকে চার লক্ষ মানুষের সই চাই। আমাকে আপনারা সই দিন, আমি একশো দিনের টাকা ছিনিয়ে আনব। বিজেপির উদ্দেশ্য তাঁর হুঁশিয়ারি, দিল্লিতে বৃহত্তর আন্দোলন হবে৷ তোমরা যে ভাষায় বোঝো, আমি সেই ভাষাতেই উত্তর দিতে জানি৷ দিল্লি স্তব্ধ করে ছাড়ব। মন্ত্রক চলতে দেব না তোমাদের। কোনও সিবিআই, ইডির ক্ষমতা নেই।

১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

যত আমাদের পিছনে এদের লাগাবে, রাস্তায় নেমে আমাদের আন্দোলন তত বাড়বে।দরকার হলে ১০০ দিনের এই ভাইবোনদের দিল্লি নিয়ে যাব। তাদের থাকার খাওয়ার ব্যবস্থা করব। তবে হকের টাকা ছিনিয়ে আনব।’আলিপুরদুয়ারের মাটি থেকে নয়া কর্মসূচির কথা ঘোষণা করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। গোটা রাজ্যের দলের নেতা–কর্মীদের ১০০ দিনের কাজ করেও বঞ্চিতদের তালিকা তৈরি করার পাশাপাশি তাঁদের দিয়ে চিঠি লিখিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

তাঁর কথায়, ‘‌তৃণমূল কংগ্রেসের বুথ–অঞ্চল সভাপতি, গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান, ব্লক সভাপতিদের বলছি, যাঁরা এই বক্তব্য শুনছেন, তাঁদেরকেও অনুরোধ করছি, প্রত্যেক বুথে কারা ১০০ দিনের কাজ করেও পাওনা টাকা থেকে বঞ্চিত, তার একটি তালিকা তৈরি করুন। সেই তালিকা তৈরি করে বুথে বুথে মানুষের কাছে যান এবং তাঁদের দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ও কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের উদ্দেশে চিঠি লেখান। আমরা এক বছর ধরে অপেক্ষা করে যাচ্ছি। আর নয়, এক মাসের মধ্যে ১ কোটি সই প্রয়োজন। একমাসের মধ্যে টাকা না ছাড়লে দিল্লি স্তব্ধ করে দেব।’‌

১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

পয়লা বৈশাখের ঠিক পরের দিন, ১৬ এপ্রিল থেকে এই সমস্ত বঞ্চিত মানুষের কাছে পৌঁছতে হবে বলে কর্মসূচি ঘোষণা করেন অভিষেক। অভিষেকের অভিযোগ, বিজেপি জনপ্রতিনিধিরা সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেনি। বঞ্চনা নিয়েও সরব হয়নি। তাই রাস্তায়, চায়ের দোকানে তাঁদের দেখতে পেলে ঘেরাওয়ের পরামর্শ দিলেন অভিষেক। তাঁর কথায়, “হাতজোড় করে তাঁদের প্রশ্ন করুন, কোথায় আমাদের ১০০ দিনের টাকা?

১ কোটি চিঠি নিয়ে দিল্লি স্তব্ধ করার হুঙ্কার অভিষেকের

কোথায় আমাদের আবাসের টাকা?” তাঁর কথায়, তৃণমূল চোরদের আগলে রাখে না। দুর্নীতিগ্রস্তদের জেলে ঢোকান। বিরোধিতা করব না। কিন্তু একজনের দোষের কারণে সবাইকে বঞ্চিত না করার হুঁশিয়ারি তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ডের। এদিন ফের একবার রাজ্যে অবাধ পঞ্চায়েত ভোটের আশ্বাস দেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর স্পষ্ট বার্তা, “পঞ্চায়েত হবে মানুষের। সবাই ভোটে দাঁড়াবে। যার যাকে খুশি ভোট দেবেন। পঞ্চায়েতে অবাধ, শান্তিপূর্ণ ভোট হবে।” একইসঙ্গে দলের প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতায় জোর দেওয়ার কথাও জানালেন তিনি।

Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it.

Most Popular

error: Content is protected !!