Sunday, June 16, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজনীতিরিষড়াতেও ঢুকতে বাধা সুকান্তকে, হুঁশিয়ারি আন্দোলনের

রিষড়াতেও ঢুকতে বাধা সুকান্তকে, হুঁশিয়ারি আন্দোলনের

স্টাফ রিপোর্টার : শিবপুরে যাওয়ার আগে বাধা পেয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। সোমবার ফের বাধা পেলেন তিনি।শিবপুরের পর এবার রিষড়ায় পরিস্থিতি পর্যবেক্ষনে যাওয়ার আগে বাধা পেলেন তিনি।রবিবার রাতে রামনবমীর মিছিলকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয় রিষড়া।সোমবার আক্রান্ত দলীয় কর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাত করার জন্য রিষড়া যাওয়ার পরিকল্পনা নেন গেরুয়া শিবিরের সুকান্ত মজুমদার। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে তাঁকে বাধা দেওয়া হয়। পুলিশের পক্ষ থেকে বাধার কারণ হিসেবে জানানো হয়, এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি হওয়ার কারনে তাঁকে প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়েছে।

রিষড়াতেও ঢুকতে বাধা সুকান্তকে, হুঁশিয়ারি আন্দোলনের

কোন্নগর হাসপাতালে আক্রান্তদের সঙ্গে সাক্ষাত করে তিনি রিষড়া যেতে চেয়েছিলেন বলেই খবর সূত্রের। প্রবেশে বাধা পেয়ে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তিনি। সুকান্ত মজুমদারের সঙ্গে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিজেপি কর্মীরা। ব্যারিকেড ভেঙে এগিয়ে যেতে চান কর্মীরা। পুলিশ-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। সূত্রের খবর, সুকান্ত মজুমদার দাবি করেন অন্তত তিনজনকে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হোক। অন্যদিকে সুকান্ত মজুমদার রিষড়া যেতে অনড়। কয়েক ঘন্টা পেরিয়ে যাওয়ার পরেও তিনি রিষড়া যাওয়ার জন্য রাস্তায় বসে অবরোধ চালাবেন বলে জানায়। আর এরপর অবস্থানে বসে যান তিনি।

রিষড়াতেও ঢুকতে বাধা সুকান্তকে, হুঁশিয়ারি আন্দোলনের

এরপর থেকে টানা ছয় ঘন্টা কেটে যায়। সেখানেই বসে ছিলেন বালুরঘাটের এই সাংসদ। যা নিয়ে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। শুধু তাই নয়, জিটি রোড জুড়ে তীব্র যানজট তৈরি হয়। যদিও বিজেপি নেতার দাবি, তাঁরা রাস্তা ছেড়েই বসেছিলেন। এমনকি পুলিশকে ব্যারিকেড খুলে দেওয়ার জন্যেও আবেদন জানানো হয়। কিন্তু তা খুলে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। পরে যদিও সাধারণ মানুষের কথা ভেবেই অবরোধ তুলে নেওয়ার কথা জানান সুকান্ত মজুমদার।তবে আজ থেকে লাগাতার কর্মসূচির ডাক দিয়েছেন তিনি।

রিষড়াতেও ঢুকতে বাধা সুকান্তকে, হুঁশিয়ারি আন্দোলনের

বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদের দাবি, আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে লাগাতার আন্দোলনের পথে হাঁটা হবে। এমনকি তিনি নিজেও শ্রীরামপুরে ধর্নায় বসবেন বলেও জানিয়েছেন সুকান্ত মজুমদার। এমনকি পুলিশ যতদিন না পর্যন্ত মূল অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করবে ততদিন এই ধর্না চলবে বলেও হুঁশিয়ারি। যা নিয়ে শুরু হয়েছে জোর রাজনৈতিক বিতর্ক। বিজেপির নাটক বলে দাবি তৃণমূলের। এমনকি পায়ের নীচে মাটি হালকা হচ্ছে বুঝেই এই কাজ বলে কটাক্ষ তৃণমূলের।

Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it.

Most Popular

error: Content is protected !!