Sunday, May 19, 2024
spot_img
Homeজেলাকাকদ্বীপ আদালতে দোষীকে দেওয়া হল ফাঁসির নির্দেশ

কাকদ্বীপ আদালতে দোষীকে দেওয়া হল ফাঁসির নির্দেশ

বিশ্ব সমাচার, কাকদ্বীপ : এই প্রথম কাকদ্বীপ আদালতে দেওয়া হল ফাঁসির নির্দেশ। ২০১৮ সালের একটি খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই ফাঁসির নির্দেশ দেওয়া হয়। আদালত সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার নামখানার দ্বারিকনগরের এক ৩২ বছরের গৃহবধূকে প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে সমর পাত্র নামে এক যুবক বকখালীর একটি হোটেলে নিয়ে যায়। ১১/০৪/২০১৮ তারিখ সেই হোটেলে নিয়ে গিয়ে ওই গৃহবধূকে শ্বাস রোধ করে খুন করা হয়। এছাড়াও তার শরীরে ধারালো কোন কিছু দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করা হয়।

কাকদ্বীপ আদালতে দোষীকে দেওয়া হল ফাঁসির নির্দেশ

এদিন রাতেই খুন করে অভিযুক্ত বাথরুমের জানালা ভেঙে পালিয়ে যায়। ১২/০৪/২০১৮ তারিখ ফ্রেজারগঞ্জ কোস্টাল থানার পুলিশ ওই হোটেল থেকে গৃহবধূর দেহ উদ্ধার করে। এরপরই ওই হোটেলের ম্যানেজার এই বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে এই কেসের তদন্তকারী পুলিশ অফিসার অর্পণ নায়েক তদন্ত শুরু করেন। তদন্তে গতি আনতে সাহায্য করেন ফ্রেজারগঞ্জ কোস্টাল থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক শুভেন্দু দাস।

কাকদ্বীপ আদালতে দোষীকে দেওয়া হল ফাঁসির নির্দেশ

তদন্তে নেমে প্রায় দেড় মাস পর অভিযুক্ত সমর পাত্রকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর থেকে কাকদ্বীপ আদালতে এই ঘটনার বিচার চলতে থাকে। তবে বিচার চলাকালীন অভিযুক্ত জেলেই ছিল, একবারও জামিন পায়নি বলেই জানা যায়। অবশেষে বুধবার এই কেসের রায় ঘোষণা করা হয়। এদিন কাকদ্বীপ আদালতের বিচারক তপন কুমার মন্ডল অভিযুক্ত সময়কে ফাঁসির নির্দেশ দেন। এবিষয়ে কাকদীপ আদালতের সরকারি আইনজীবী অমিতাভ রায় জানান,

কাকদ্বীপ আদালতে দোষীকে দেওয়া হল ফাঁসির নির্দেশ

ওই গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধার হওয়ার পথ থেকেই পুলিশ তদন্ত শুরু করে। তবে তদন্তের ক্ষেত্রে পুলিশ কোথাও ফাঁকফোকর রাখেনি। এই কেসের তদন্তে ফরেন্সিক এক্সপার্টকেও কাজে লাগানো হয়। এছাড়াও ১৮ জনকে সাক্ষী করা হয়। গুরুত্বপূর্ণ ৬৩টি নথিপত্র আদালতে দাখিল করা হয়েছে। দীর্ঘদিন বিচার বিবেচনার পর অবশেষে এদিন বিচারক ফাঁসির নির্দেশ দেন।

Most Popular

error: Content is protected !!