Tuesday, May 28, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজ্যএবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

এবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

স্টাফ রিপোর্টার : আর ইডি হেফাজত নয় অবশেষে তিহাড় জেলেই যেতে হচ্ছে গরু পাচার মামলায় অভিযুক্ত অনুব্রত মণ্ডলকে।দিল্লির রাউস অ্যাভিনিউ আদালত তাঁকে ১৩ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে।মঙ্গলবার অনুব্রতকে পেশ করা হয়েছিল দিল্লির রাউস অ্যাভিনিউ কোর্টে। সেখানে ইডির পক্ষ থেকে অনুব্রত মণ্ডলের জন্য ১৪ দিনের জেল হেফাজত চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু আদালত অনুব্রত মণ্ডলকে ১৩ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

এই তিহাড় জেলেই রয়েছেন তাঁর দেহরক্ষী সায়গল হোসেন এবং হিসাব রক্ষক মণীশ কোঠারী। সেখানেই নিয়ে যাওয়া হচ্ছে কেষ্টকে।অনুব্রতকে দিল্লি নিয়ে গিয়ে জেরা করতে চায় বলে আগেই আবেদন করেছিল ইডি। তারপর তা নিয়ে চলে বিস্তর টানাপড়েন। হাইকোর্ট, দিল্লি কোর্ট ঘুরে সুপ্রিম কোর্টেও দিল্লি যাত্রা এড়ানোর জন্য আবেদন করেন অনুব্রত। তবে সব জায়গায় ধাক্কা খাওয়ার পর অবশেষে চলতি মাসের ৭ তারিখ বীরভূমের তৃণমূল নেতাকে দিল্লি নিয়ে যায় ইডি।সেখানেই কয়দিন ইডি হেফাজতে থাকার পর দিল্লি আদালতে তোলা হয় অনুব্রতকে।

এবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

ইডির তরফ থেকে কেষ্টকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে আর্জি জানানো হয়েছিল। বিচারক ১৩ দিনের জেল হেফাজত দিয়েছেন।পরবর্তী শুনানি ৩ এপ্রিল। এদিকে কেষ্টর এই তিহাড় যাত্রা নিশ্চিত হওয়ার পরে কাকতালীয়ভাবে তাঁর গুরুত্বকে লঘু করে দেখাতে চাইল তৃণমূল।মঙ্গলবার তৃণমূলের তরফে সাংবাদিক সম্মেলন করেন শিল্পমন্ত্রী শশী পাঁজা। তাঁকে দুর্নীতি নিয়ে একাধিক নেতার যোগ ইত্যাদি প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে তিনি বোঝাতে চান, কেউ পদে থেকে যদি দুর্নীতি করেন তার দায় পার্টির নয়।

এবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

কারণ পার্টি তাঁকে চুরি করতে বলেনি।এই প্রসঙ্গেই তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, কেন অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে এখনও ব্যবস্থা নিল না দল? জবাবে শশী বলেন, ‘এই দল সেই দল, যারা একজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীকে মন্ত্রিত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছিল। মহাসচিব পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছিল। যিনি এখন জেলে আছেন। তা করা হয়েছিল খুব তাড়াতাড়ি।’ খানেই থামেননি শশী। বলেন, ‘একজন মন্ত্রীকে সরিয়ে দিয়েছিল দল, জেলা সভাপতি তো ছোট ব্যাপার।’

এবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

অগস্ট মাসে অনুব্রত গ্রেফতার হওয়ার কিছুদিন পর মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, ‘কেষ্টকে বীরের সম্মান দিয়ে জেল থেকে বের করে আনতে হবে।’ সেখানেই শেষ নয়, অতি সম্প্রতিও মমতাকে বলতে শোনা গিয়েছে, পঞ্চায়েতের আগে অনুব্রতকে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া নাকি আদতে বিরোধীদের চক্রান্ত। এছাড়া ফিরহাদ হাকিমকে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘অনুব্রত আজও বীরভূমের বাঘ।’

এবার তিহাড় জেলেই কেষ্টর নতুন ঠিকানা, অনুব্রত ছোট ব্যাপার, সুর বদল তৃণমূলের!

মমতা নিজে হাতে বীরভূমের দায়িত্ব সামলাবেন বলেছেন, তবু অন্য কোনও নেতার হাতে বীরভূমের সভাপতি পদ তুলে দেননি। এত মাস পরও সেই পদে স্বমহিমায় রয়েছেন অনুব্রত। বিরোধীদের কটাক্ষ সত্ত্বেও পারতপক্ষে কেষ্ট সম্পর্কে কোনও নেতিবাচক মন্তব্যও করতে শোনা যায়নি তৃণমূলের কোনও সদস্যকে। তবে শশী পাঁজা মন্তব্যে কী ইঙ্গিত মিলছে? তা নিয়েই বাড়ছে জল্পনা।

Most Popular

error: Content is protected !!