Tuesday, April 16, 2024
spot_img
Homeরাজ্যসাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা...

সাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রইল?

অশোক বন্দ্যোপাধ্যায়, সাগরদিঘি ঃ মুর্শিদাবাদ জেলার সাগরদিঘির উপনির্বাচন এর ফল কী হতে পারে সোমবার ভোট গ্রহণ শেষে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রয়ে গেল। তবে এ কথাও ঠিক এই ভোটের সারাদিনের ছবি বলছে কিছু মিরাকেল হতে পারে। এমনটা কেন বলা হচ্ছে তার ইঙ্গিত এদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তৃণমৃল থেকে বিরোধী দল কংগ্রেস ও সিপিএম জোট এবং বিজেপির বিরুদ্ধে একের পর বিধিভঙ্গের অভিযোগ করেছে। এ নিয়ে যেভাবে হল্লাগোল্লা করেছে শাসক দল। তাতেই রাজনৈতিক মহলের অনেকের খটকা লেগেছে।

সাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রইল?

কারণ এই কেন্দ্র তৃণমূলের জেতা ক্ষেত্র। স্বাভাবিকভাবেই তারা জিতবেন ধরে নেওয়া যেতে পারে। তাছাড়া পুলিশ ও প্রশাসন নিরপেক্ষ বলা হলেও সব সময় ক্ষমতাসীন দলের পরোক্ষ প্রভাব এদের উপর থেকে যায়। সেক্ষেত্রে এমনটা সাগরদিঘি ভোটের দিন তা যে সুক্ষভাবে কাজ করেনি তা হলফ করে বলা যাবে না। তারপরও কেন বার বার তৃণমূলের দিক থেকে চিৎকার করতে হল। তা নিয়ে খটকা তৈরি হয়েছে। তা হলে কি ভোটের চোরাস্রোত দেখে তৃণমূলের এই দিশেহারা ভাব হল। তাই প্রেসার পলিটিক্স করতে এই হল্লাগল্লা করা হল?

সাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রইল?

এমন প্রশ্ন এদিন ভোটারদের মুখে মুখে ফিরেছে। তার উদাহরণ ভোট শুরুর মাত্র কিছু সময় পর থেকে হোসেনপুর এর ২১০ ও ২১১ নম্বর বুথে অশান্তির অভিযোগ তোলে তৃণমূল। কং প্রার্থী বায়রণ বিশ্বাস বুথে ঢুকে ভোটারদের প্রভাবিত করছেন বলে জোড়া ফুল অভিযোগ তোলে। তাঁকে লক্ষ্য করে তৃণমূলের লোকজন গো ব্যাক ধ্বনি দেয়। কং প্রার্থী ওই অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি বলেন ভোট সঠিকভাবে হচ্ছিল না। তা দেখার জন্য এসেছিলাম। কিন্ত পুলিশ কে দিয়ে আমাকে আটকে দেওয়া হয়। তাতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য এই গেম প্ল্যান তৃণমূলের। এদিন বিজেপি প্রার্থী দিলীপ সাহার বিরুদ্ধেও বিধিভঙ্গের অভিযোগ তোলে তৃণমৃল।

সাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রইল?

তা হল দিলীপবাবু সামসাবাদ হাইস্কুলে র বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে ঢুকে ভোটারদের প্রভাবিত করছেন। এমন অভিযোগ ছিল তৃণমূলের। যদিও দিলীপবাবু বলেন নিয়ম হল বুথের ২০০ মিটারের ভিতর পুলিশ যেতে পারবে না। কিন্ত তা ভেঙে পুলিশ সেখানে গিয়ে প্রভাবিত করছিল। সেই কারণে প্রতিবাদ জানাতে যেতে হয়েছিল। আসলে ওদের ভোট ঘুরে গিয়েছে বুঝে এমন সব ভিত্তিহীন অভিযোগ করছে। এদিন ভোট কেন্দ্র ঘুরে ভোটারদের ভিতর তৃণমূল বিরোধী মতিগতির একটা আভাস পাওয়া গিয়েছে।

সাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রইল?

সেই কারণে এদিন বিভিন্ন জায়গাতে তৃণমূল বিরোধী দল কংগ্রেস ও সিপিএম জোট এবং বিজেপির দিকে আঙুল তুলে শোরগোল করেছে। কোথাও কোথাও রাস্তা অবরোধ করেছে।এদিন দুপুর পর্যন্ত ভোটের হার অনেকটা কম ছিল। মহিলাদের ভিড় নজরে এসেছে। সেই কারণে সকাল ৯ টা পর্যন্ত ১৩ , ৩৭ শতাংশ, বেলা ১১ টা পর্যন্ত ভোটের হার ছিল ৩৯ , ৯২ শতাংশ, দুপুর ১ টা পর্যন্ত ভোটের হার ছিল ৪৮ , ২৮ শতাংশ। এরপর থেকে ভোটের হার বেড়ে যায়। বিকেল তিনটে পর্যন্ত ৬৩ , ৪৩ শতাংশ।

সাগরদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ফল কী হতে পারে তা প্রশ্নবোধক হয়ে রইল?

বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ভোটের হার ৭৪ শতাংশ হয়ে যায়। লক্ষ্যনীয় হল এদিন বিভিন্ন জায়গাতে ঘুরে বিশেষ করে দুপুরের পর অনেক বুথে র বাইরে তৃণমূলের লোকজনের সেভাবে ভিড় নজরে আসেনি। বরং উল্টোটা ছিল। বিরোধীদের ভিড় ছিল। যদি তৃণমূল দাবি করেছে যে বিরোধীরা জোট বেধে ভোটারদের নানা জায়গাতে প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছে। তবে শেষ পর্যন্ত জনতার রায় তাদের দিকে যাবে।

Most Popular