খবররাজ্য

ভোট দিলে তবেই মিলবে রাস্তা, গ্রামবাসীদের এমনই নিদান কাকলির

স্টাফ রিপোর্টার: ভোট দিলে তবেই রাস্তা করা হবে। শুক্রবার এমনই কথা শোনা গেল বারাসতের তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারের মুখে। শুক্রবার উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর চৌবেড়িয়া-২ পঞ্চায়েত এলাকায় ‘দিদির দূত’ হিসাবে গিয়েছিলেন বারাসতের সাংসদ। সেখানে রাস্তার দাবি জানান গ্রামবাসীরা। রাস্তার দাবি শুনে কাকলি জানতে চান, এলাকায় পঞ্চায়েতের সদস্য কে?

গ্রামের এক বাসিন্দা বলেন, ‘‘বিজেপির সদস্য।’’ এ কথা শুনেই হাসতে হাসতে সাংসদ বলেন, ‘‘যেমন বিজেপিকে (ভোট) দিয়েছেন, ও রকমই থাকবে।’’ এক বাসিন্দা বলেন, ‘‘রাস্তার কাজ ৯০ শতাংশ হয়েছে, এখনও ১০ শতাংশ বাকি।’’ যা শুনে কাকলির মন্তব্য, ‘‘পরের বার আমাকে দিক, তার পর করব।’’ সাংসদের এ কথা শুনে মেজাজ হারান সাবিত্রী দাস নামে এক মহিলা। কাকলির সামনে হাত উঁচিয়ে ওই মহিলা বলেন, ‘‘সবাই কি বিজেপি করেন নাকি! তৃণমূলও তো আছেন অনেকে।

তা হলে আমরা পঞ্চায়েতে ভোট দেব না তৃণমূলে। তার পর দেখব কী করে পঞ্চায়েত দাঁড় করায় তৃণমূল!’’ ওই মহিলার এই ‘হুঙ্কার’ শুনে হাসতে হাসতে কাকলি বলেন, ‘‘তা হলে কিছুই পাবেন না। চাল পাবেন না। লক্ষ্মীর ভান্ডার পাবেন না। কন্যাশ্রী পাবেন না। স্বাস্থ্যসাথী পাবেন না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলে কিছুই পাবেন না।’’ যদিও তিনি মজা করতেই এই মন্তব্য করেন বলে সংবাদমাধ্যমে দাবি করেছেন কাকলি।

তাঁর কথায়, ‘‘আমি মজা করছিলাম। সিরিয়াসলি তো বলিনি। রাস্তা হবে। সব লিখে নিয়েছি।’’ কাকলির এই মন্তব্য প্রকাশ্যে আসতেই বিতর্ক শুরু হয়েছে। কাকলিকে নিশানা করেছেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক দেবদাস মণ্ডল। বলেছেন, ‘‘সাংসদ বলেছেন বিজেপিকে ভোট দিয়েছে বলে রাস্তাঘাট হবে না। এক জন সাংসদ হয়ে এ কথা বলতে পারেন! পঞ্চায়েতে এ কথার জবাব দেবেন গ্রামের মানুষ।’’

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!