Friday, May 24, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজ্যকেন্দ্রীয় দলের সামনেই প্রকাশ্যে আবাস দুর্নীতি, তালিকায় নাম দোতলা বাড়ির মালিকেরও

কেন্দ্রীয় দলের সামনেই প্রকাশ্যে আবাস দুর্নীতি, তালিকায় নাম দোতলা বাড়ির মালিকেরও

স্টাফ রিপোর্টার: নিজস্ব দোতলা বাড়ি থাকা সত্ত্বেও নাম উঠেছে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পের তালিকায়। জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে মালদহের সীমান্তবর্তী এলাকায় যান কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি তিন সদস্যের দল। আবাস যোজনার প্রাপকদের তালিকায় নাম ছিল বাঙ্গিটোলা গ্রামপঞ্চায়েতের গোঁসাইহাটের সাদ্দাম হোসেন ও মোথাবাড়ির জরিপ শেখ নামে দু’জনের। এদিন তাঁদের ঠিকানায় যায় প্রতিনিধি দল।

কেন্দ্রীয় দলের সামনেই প্রকাশ্যে আবাস দুর্নীতি, তালিকায় নাম দোতলা বাড়ির মালিকেরও

সূত্রের খবর, সেখানে গিয়ে দেখা যায়, সাদ্দাম হোসেনের বেশ বড়সড় পাকা বাড়ি। পঞ্চায়েত কর্মী সাদ্দামের এহেন বাড়ি থাকা সত্ত্বেও কেন আবাস যোজনার প্রাপকের তালিকায় নাম? সাদ্দামের দাবি, বহু বছর আগে আবেদন করা হয়েছিল বাড়ির জন্য। পরবর্তীতে আর্থিক উন্নতি হওয়ায় বাড়ি তৈরি করেছেন। এদিন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন, তালিকা থেকে বাদ যাচ্ছে সাদ্দামের নাম।

কেন্দ্রীয় দলের সামনেই প্রকাশ্যে আবাস দুর্নীতি, তালিকায় নাম দোতলা বাড়ির মালিকেরও

এদিকে মোথাবাড়ির বাসিন্দা কাঠ ব্যবসায়ী জরিপ শেখেরও দোতলা বাড়ি। কিন্তু নাম আবাস যোজনার তালিকায়। জরিপের দাবি, ৭ বছর আগে আবেদন করেছিলেন। তারপর ঋণ নিয়ে বাড়ি করেছেন। ৩ মাস আগে দোতলা করেছেন। ফলত দুর্নীতি করেননি বলেই দাবি তাঁর। কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তায় প্রতিনিধি দল বিভিন্ন জায়গা ঘুরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে রিপোর্ট তৈরি করছেন।

কেন্দ্রীয় দলের সামনেই প্রকাশ্যে আবাস দুর্নীতি, তালিকায় নাম দোতলা বাড়ির মালিকেরও

তাঁদের সঙ্গে ছিলেন মালদহের জেলাশাসক নীতিন সিংহানিয়া, অতিরিক্ত জেলাশাসক বৈভব চৌধুরী। প্রশাসনের দাবি, জেলায় প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় প্রথম তালিকায় ১ লক্ষ ৬৭ হাজার নাম ছিল। প্রথম দফার বাছাইয়ে প্রায় ২৮ শতাংশ নাম বাদ গিয়েছে। এর মধ্যে ঘর প্রাপকদের নামের তালিকাও তৈরি। এ বার সেই তালিকাই সরেজমিনে ঘুরে খতিয়ে দেখছেন কেন্দ্রীয় আধিকারিকরা।

Most Popular

error: Content is protected !!