Friday, June 14, 2024
spot_img
spot_img
Homeরাজ্যজাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু, স্বামীর বক্তব্যে একাধিক রহস্য

জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু, স্বামীর বক্তব্যে একাধিক রহস্য

স্টাফ রিপোর্টার : বুধবার ভোরে বাগনানে জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু রাঁচির অভিনেত্রী ইশা আলিয়ার। রাঁচি থেকে আসার পথে ১৬ নম্বর জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হন তিনি। জানা গিয়েছে, মৃত রিয়া কুমারী ওরফে ইশা আলিয়ার আসলে ঝাড়খণ্ডের অভিনেত্রী। তাঁর স্বামী প্রকাশ বড় ব্যবসায়ী। শুধু তাই নয়, শর্ট ফিল্মের ডিরেক্টরও তিনি। ইউটিউবার হিসেবেও খ্যাত মহিলা।

জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু, স্বামীর বক্তব্যে একাধিক রহস্য

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নায়িকার স্বামীর প্রকাশকুমার ঝাঁ-এর বক্তব্য অনুযায়ী, প্রকাশের দাবি, সামনেই মেয়ের জন্মদিন। তাই উপহার কিনতে ঝাড়খণ্ড থেকে কলকাতা আসছিলেন।১৬ নম্বর জাতীয় সড়কের মহিষরেখা ব্রিজের কাছেই গাড়ি দাঁড় করিয়ে প্রাতঃকৃত করতে গিয়েছিলেন তিনি। তাঁর স্ত্রী ও কন্যা গাড়িতেই ছিল। সেখানেই তিন দুষ্কৃতী হামলা চালায়। টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু, স্বামীর বক্তব্যে একাধিক রহস্য

ছিনতাইয়ে বাধা দেওয়ায় পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে দেয় দুষ্কৃতীরা। এরপর রক্তাক্ত স্ত্রীকে গাড়ির ডিকিতে তুলে তিনি একটি কারখানার সামনে আসেন।সূত্রের খবর, মৃতার স্বামী প্রকাশ ছিনতাইবাজের হামলার দাবি করলেও তা কতটা সত্য তা নিয়ে ধন্দ। কারণ, পুলিশের দাবি, গাড়িতে মেলেনি রক্তের দাগ। এমনকী ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোলও উদ্ধার হয়নি।

জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু, স্বামীর বক্তব্যে একাধিক রহস্য

কিন্তু গাড়িতে গুলি করা হলে রক্তের দাগ মেলাই স্বাভাবিক।এমনকি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটলে, যে পরিমাণ ধস্তাধস্তি হয়, সেরকমও কোনও ছাপ তাঁরা গাড়ির ভিতরে লক্ষ্য করেননি। বরং গাড়ির ভিতরের সব জিনিস সাজিয়েই রাখা ছিল।এদিকে প্রত্যক্ষদর্শীদের তরফে জানানো হয়েছে, গাড়ির কাচ বন্ধ ছিল।

জাতীয় সড়কে গুলিবিদ্ধ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু, স্বামীর বক্তব্যে একাধিক রহস্য

মৃতার স্বামীর দাবি, বাইরে থেকে ছিনতাইকারীরা গুলি চালায়। তাহলে কীভাবে গাড়ির কাঁচ অক্ষত অবস্থায় থাকল, সেই প্রশ্ন থাকছেই। এছাড়াও একাধিক কারণেই প্রশ্ন উঠছে মৃতার স্বামীর ভূমিকা নিয়ে। দম্পতির মধ্যে সম্পর্ক কেমন ছিল। গোটা ঘটনার নেপথ্যে দাম্পত্য কলহ রয়েছে কি না, তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it.

Most Popular

error: Content is protected !!